পুলিশের সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধে নিহত ২ মাদক ব্যবসায়ী;আহত চার পুলিশ সদস্য

ছবি : সংগ্রহীত

পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। কক্সবাজারের টেকনাফে বৃহঃস্পতিবার ভোর রাতের আগে এ ঘটনা ঘটে।এতে চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

পরে ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের সাতঘরিয়া পাড়ায় বৃহঃস্পতিবার রাতের তিনটার দিক এ ঘটনা ঘটে বলে জানান টেকনাফ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ।

তিনি আরও বলেন, বুধবার রাতে টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ের কাঞ্জরপাড়া থেকে মাদক মামলার পলাতক আসামী জিয়াবুল হক ওরফে বাবুল এবং তার সহযোগী মোহাম্মদ আজিমুল্লাককে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। থানায় এনে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক হোয়াইক্যংয়ের সাতঘরিয়া পাড়া সংলগ্ন পাহাড়ী এলাকায় ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান চালায় পুলিশের একটি দল।
পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছালে তাদের সহযোগীরা বুজতে পেরে পুলিশকে লক্ষ্য গুলি ছুড়তে শুরু করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশ সদস্যরাও তাদের দিকে পাল্টা গুলি ছুঁড়ে।

গোলাগুলি থেমে গেলে ঘটনাস্থল থেকে জিয়াবুল ও অজিমুল্লাহকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। সেখানে আহত হয় পুলিশের ৪ সদস্য। ঘটনাস্থলে তল্লাশি করে পাওয়া যায়, একটি ডাবল শুটার গান, দেশিয় তৈরী ৫টি বন্দুক, ৩৬টি গুলি, ২টি রাইফেলের গুলি ও ৫ হাজার ইয়াবা।

আহতদের উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক গুলিবিদ্ধ ২ জনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পরে, তাদের সেখানে নেয়া হলে জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রয়েছে বলে জানান ওসি প্রদীপ।

তিনি আরও বলেন, নিহত জিয়াবুল হক ওরফে বাবুল একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। মাদক ও অস্ত্র আইনে তার বিরুদ্ধে থানায় ৫টি মামলা রয়েছে। এছাড়াও মোহাম্মদ আজিমুল্লাহ মাদক ব্যবসায় তার সহযোগী। তার বিরুদ্ধে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে।

আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তাইয়ান আদনান, এসআই মোহাম্মদ সাব্বির, কনস্টেবল আব্দুল শুক্কুর ও মোহাম্মদ তাইজুল।

এসএফ-১৩২

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here