পাবনা-৪ আসনে নৌকার হাল ধরতে ডজনের অধিক দলীয় নেতা কর্মী মনোনয়ন প্রত্যাশী

প্রকাশিত: ৯:৩৪ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৮, ২০২০

পাবনা-৪ আসনে নৌকার হাল ধরতে ডজনের অধিক দলীয় নেতা কর্মী মনোনয়ন প্রত্যাশী

পাবনা প্রতিনিধি:

পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী-আটঘড়িয়া) আসনে উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দৌড়ে প্রায় দেড় ডজন নেতার নাম শোনা যাচ্ছে। নেতারা কর্মী ও জনসমর্থন বাড়াতে নানা কৌশল অবলম্বন করছেন। শেষ পর্যন্ত কে নৌকার হাল ধরতে পারবেন, তা নিয়ে চলছে নানা গুঞ্জন ও আলোচনা।





স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সাবেক ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু চলতি বছরের ২ এপ্রিল বার্ধক্যজনিত রোগে মারা যান। ১৩ এপ্রিল আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়। নির্বাচন কমিশন থেকে আগামী আগস্টের শেষ সপ্তাহে তফসিল ঘোষণা ও সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে উপনির্বাচন হওয়ার সম্ভাবনার কথা জানানো হয়েছে।





এরপর থেকে দলীয় মনোনয়নপ্রত্যাশীরা জনসমর্থন বাড়াতে উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে মতবিনিময় করছেন। আসন্ন কোরবানির ঈদ উপলক্ষে ঈদ শুভেচ্ছা জানাতে রঙিন পোস্টার, ব্যানার পথে পথে শোভা পাচ্ছে।





মনোনয়ন দৌড়ে রয়েছেন প্রয়াত সংসদ সদস্য শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর ছেলে ও ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য গালিবুর রহমান শরীফ, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রবিউল আলম বুদু সরদার, মৎস্যজীবী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সম্পাদক প্রকৌশলী আব্দুল আলিম, ব্যারিস্টার সৈয়দ আলী জিরু, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য এবং সাবেক সংসদ সদস্য পাঞ্জাব আলী বিশ্বাস, সাবেক সেনা কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম রবি, জেলা আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ও ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান বিশ্বাস, ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নায়েব আলী বিশ্বাস, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম লিটন, ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান স্বপন, ব্যবসায়ী জালাল উদ্দিন তুহিন, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী রকি প্রামানিক, ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মোহাম্মাদ রশিদুল্লাহ, জেলা আওয়ামী লীগের সহসম্পাদক বশির আহমেদ বকুল, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী ড. মুসলিমা জাহান ময়না, শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর মেয়ে ও জেলা আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদিকা মাহজেবিন শিরিন পিয়া প্রমুখ।





গালিবুর রহমান শরীফ বলেন,‘বাবার মৃত্যুতে ঈশ্বরদী-আটঘড়িয়ায় শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছিল। আমি সেটা পূরণ করেছি।’
প্রকৌশলী আব্দুল আলিম বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে কেন্দ্র ও নির্বাচনীয় এলাকায় সুনামের সঙ্গে সাংগঠনিক কাজ করছি। এলাকায় শিক্ষা, বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়ন ও সেবামূলক কাজ করেছি।’





ব্যারিস্টার সৈয়দ আলী জিরু বলেন, ‘ঈশ্বরদী-আটঘড়িয়া একটি চরম সম্ভাবনাময় এলাকা। কিন্তু দীর্ঘকাল ধরে যোগ্য নেতৃত্ব ও লোকের অভাবে সেটা বাস্তবায়ন হয়নি। এখানে স্বচ্ছ লোকের অভাব।’





সাবেক সংসদ সদস্য পাঞ্জাব আলী বিশ্বাস বলেন, ‘বিগত নির্বাচনে নেতাকর্মী ও হাজার হাজার মানুষ আমাকে প্রার্থী ঘোষণা করেছিল।





ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নায়েব আলী বিশ্বাস বলেন, ‘দলের জন্য জীবন-যৌবন বিসর্জন দিয়েছি। জেল জুলুম খেটেছি। তাই এবার মনোনয়ন চাইবো।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমাদের সাথে কানেক্টেড থাকুন

বিজ্ঞাপন

cloudservicebd.com