নরসিংদীতে কুপিয়ে এক যুবককে হত্যা

ছবি : সংগ্রহীত

ডিশ ব্যবসার বিরোধের সূত্র ধরে নরসিংদিতে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।মৃত যুবকের নাম রুহুল আমিন (২০)।নিহত রুহুল আমিনের বাড়ি নরসিংদীর পূর্ব ব্রাক্ষন্দী মহল্লায়।রুহুল আমিন ঐ এলাকার বিল্লাল মিঞার ছেলে। জানা গেছে,ডিশ ব্যবসা নিয়ে বিরোধের জেড়ে বুধবার ১১টার দিকে নরসিংদীর পূর্ব ব্রাক্ষন্দী পাড়ার জবা টেক্সটাইলের পাশে ডেকে নিয়ে রুহুল আমিনকে হত্যার ঘটনা ঘটে। মৃত রুহুলের পরিবারের লোকেরা জানান,কিছুদিন থেকে রুহুল আমিন এলাকার ডিশ ব্যবসার কিছু অংশ নিজের আয়ত্বে নিতে চায় এবং ডিস ব্যবসায়ী সারোয়ার হোসেনের কর্মচারী মনির হোসেনকে এ কথা বলেন।এ নিয়ে তাদের মধ্যে প্রথমে কথা কাটাকাটি হলেও শেষে হাতাহাতি হয়। সেই সূত্র ধরে বুধবার সকাল ১১টার দিকে রুহুল আমিনকে নিজ বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় সারেয়ারের ছেলে তানজিল, কর্মচারী মনির,এবং আরো দুজন ছোটন ও হৃদয়। রুহুলকে ডেকে নিয়ে বাড়ির নিকটবর্তী জবা টেক্সটাইল পার্শ্ববর্তী মাঠে এলেপাথারি কোপাতে থাকে।এসময় রুহুলের চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন ও তার পরিবারের লোকজন ঘটনা স্থলে আসলে তারা পালিয়ে যায়। পরে সেখানে আসা লেকজন রুহুল আমিনকে গুরুতর আহত অবস্থায় নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিয়ে যায় এবং সেখানের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহতের ছোট ভাই আলামিন বলেন, ‘রুহুল আমিন এলাকায় ডিশের ২/৩ শত সংযোগের দায়িত্ব নিতে চেয়ে সারেয়ারের কর্মচারিকে জানায়। এ নিয়ে কয়েকদিন আগে তানজিলদের কর্মচারী মনিরের ও রুহুল ভাইয়ের মাঝে ঝামেলা হয়। ঐ ঘটনার জের ধরেই তারা আজ সকালে ভাইয়াকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে। আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’ নরসিংদী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সৈয়দুজ্জামান জানিয়েছেন, আমরা একটি ‘যুবককে কুপিয়ে হত্যার খবর পেয়েছি। কিন্তু, কেনো তাকে হত্যা করা হয়েছে সে কারণ সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত নই। মামলা দায়ের হলে পর বলা যাবে। নিহত রুহুলের মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্যে নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here