ত্রিশালে নারী দিবস উপলক্ষে সমাবেশ ও আলোচনা সভা

প্রকাশিত: ১০:২৫ অপরাহ্ণ, মার্চ ১০, ২০২০

ত্রিশালে নারী দিবস উপলক্ষে সমাবেশ ও আলোচনা সভা

 

মমিনুল ইসলাম মমিন, ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :
ময়মনসিংহ ত্রিশালের পোড়াবাড়ী আইয়ুব আলী মেম্বার বাড়ীতে মঙ্গলবার (১০ মার্চ) বেলা ১১ টার সময় ব্র্যাকের সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচীর উদ্যোগে ‘প্রজন্ম হোক সমতার, সকল নারীর অধিকার’ এ প্রতিপাদ্য নিয়ে আন্তর্জাতিক নারী দিবস ২০২০ উপলক্ষে সমাবেশ, মানববন্ধন ও আলোচনা সভা সহ খেলা-ধুলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচীর উদ্যোগে আয়োজিত আন্তর্জাতিক নারী দিবস ২০২০ উপলক্ষে সমাবেশ, মানববন্ধন ও আলোচনা সভা সহ খেলা-ধুলা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ময়মনসিংহ জেলার সিনিয়র জেলা ব্যবস্থাপক গোলাম শফিউল আলম, ত্রিশাল উপজেলা ব্র্যাকের মাঠ সংগঠক জহিরুল ইসলাম, ত্রিশাল উপজেলা ব্র্যাকের মাঠ সংগঠক আলমগীর হোসেন নারী-শিশু প্রতিরোধ কমিটি পোড়াবাড়ী এলাকার লুৎফনন্নাহার, লাল মিয়া, সেলিনা, বিল্লাল প্রমূখ সহ ত্রিশাল রিপোর্টার্স ক্লাবের সাংবাদিক বৃন্দ।

সমাবেশ, মানববন্ধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠান শেষে নারী ও শিশুরা খেলা-ধুলায় অংশগ্রহন করে। মুরগ লড়াইয়ে প্রথম স্থান অর্জন করে লিখন মিয়া, বালিশ খেলায় প্রথম স্থান অর্জন করেন সাবিনা আক্তার ও চেয়ার দখল খেলায় প্রথম স্থান অর্জন করেন সুলতানা।

আলোচকরা তাদের বক্তব্যে বলেন, ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। প্রতি বছরের মতো এবারো বিশ্বব্যাপী পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক নারী দিবস। এবারের নারী দিবসের মূল প্রতিপাদ্য হলো ‘প্রজন্ম হোক সমতার, সকল নারীর অধিকার’। নারীদের ওপর হওয়া বৈষম্য, নির্যাতনের বিরুদ্ধে করা প্রতিবাদে নারীদের জাগ্রত করাই ব্র্যাকের সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচীর মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। বিগত কয়েক দশকে বাংলাদেশ সরকার কন্যাশিশু ও নারীর অগ্রযাত্রাকে চলমান রাখতে বিভিন্ন নারীবান্ধব নীতিমালা ও আইন প্রবর্তন করেছে। তবে নীতিমালা বাস্তবায়ন এবং আইনের যথাযথ প্রয়োগে রয়েছে নানা প্রতিবন্ধকতা। সেক্ষেত্রে আইনি জটিলতা দূর করে মামলাগুলো যথাযথ দতন্ত ও প্রসিকিউশন ব্যবস্থা তরান্বিত করা জরুরি। এছাড়া জেন্ডার সমতাপূর্ণ পরিবেশ তৈরিতে নীতিনির্ধারকদের আইনগত, সামাজিক ও আচরণগত পরিবর্তন আনার ক্ষেত্রে জোর দিতে হবে। সামাজিকীকরণ প্রক্রিয়ায় ছোটবেলা থেকেই ছেলেশিশুদের ইতিবাচক পুরুয়ের আচরণের ধারণা দিতে হবে। এক্ষেত্রে পাঠ্যক্রমে নারী-পুরুষের সমান অধিকারের বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে অন্তর্ভূক্ত করা জরুরি বলে মনে করেন ব্র্যাক কর্মকর্তারা।

ব্র্যাকের কর্মকর্তারা আরও বলেন, ব্র্যাক তার জন্মলগ্ন থেকেই একটি বৈষম্যমুক্ত পৃথিবী প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করে চলছে। বৈষম্যমুক্ত পৃথিবী বিনির্মাণে নারীর ক্ষমতায়ন অত্যন্ত জরুরি। প্রতিবছর বিভিন্ন কর্মসূচীর নানা উদ্যোগের মাধ্য দিয়ে ব্র্যাক আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপন করে আসছে।

উল্লেখ্য, ১৮৫৭ সালের ৮ মার্চ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়ার্ক শহরের পোশাক কারখানায় নারী শ্রমিকরা দীর্ঘ কর্মঘন্টা, শিশু শ্রম, মি¤œ মজুরি ও মজুরি ভৈষম্য ইত্যাদির প্রতিবাদে এবং ন্যায্য ও সম-মজুরি, শ্রমঘন্টা ৮ ঘন্টা নির্ধারণ সহ বিভিন্ন দাবিতে রাজপথে নেমে এসেছিল। পরবর্তিতে প্রায় অর্ধশতাব্দী পর ১৯০৮ সালে জার্মানিতে এ দিনটি স্মরণে প্রথম নারী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ১৯১০ সালে ডেনমার্কে কোপেনহেগেনে অনুষ্ঠিত হয় দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলন। এতে ১৭টি দেশ থেকে প্রায় ১০০ জন নারী প্রতিনিধি অংশ নিয়েছিলেন। এ সম্মেলনেই প্রথমবারের মতো প্রতি বছরের ৮ মার্চকে ‘আন্তর্জাতিক নারী দিবস’ হিসেবে পালন করার প্রস্তাব দেওয়া হয়। এ প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে ১৯১৪ সাল থেকে বেশ কয়েকটি দেশে ৮ মার্চ নারী দিবস পালিত হয়। বাংলাদেশে ১৯৭১ সাল থেকেই ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।

১৯৭৫ সালে জাতিসংঘ ৮ মার্চ দিনটিকে আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে পালনের আহ্বান করলে এর পর থেকে সারা বিশ্বব্যাপী দিনটি পালিত হয়ে আসছে।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

নামাজের সময় সূচি

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৫৩ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০৬ অপরাহ্ণ
  • ১৬:৪১ অপরাহ্ণ
  • ১৮:৫২ অপরাহ্ণ
  • ২০:১৭ অপরাহ্ণ
  • ৫:১৬ পূর্বাহ্ণ

আমাদের সাথে কানেক্টেড থাকুন

বিজ্ঞাপন

cloudservicebd.com