চরাঞ্চলে আগাম ফসলের চাষ,

চরাঞ্চলে আগাম ফসলের চাষ,লাভবাম হওয়ার স্বপ্ন দেখছে কৃষক কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি,২১ঃকুড়িগ্রাম বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী বন্যাকবলিত একটি জেলা।এ জেলায় প্রতি বছর বন্যায় ঘর বাড়ি হারায় শতশত মানুষ।ক্ষতি হয় হাজার হাজার হেক্টর জমির ফসল।বিশেষ করে নদীর নিকটবর্তী বা চরাঞ্চলের ফসল সম্পুর্ণরুপে বিনষ্ট হয়ে যায়।ফলে দারিদ্রতা বেড়েই চলছে। গত কয়েকবছর থেকে দেখা যাচ্ছে অন্য চিত্র। বন্যার পানি নেমে যেতে কৃষি কর্মকর্তাদের পরামার্শে কৃষকরা চাষ করছে বিভিন্ন আগাম ফসল। এমনই চিত্র দেখা গেল জেলার ফুলবাড়ি উপজেলার চরাঞ্চলের কৃষকদের জমিতে। এলাকাটি ধরলা নদীর অববাহিকায় হওয়ায় এখানের কৃষকরা অনেকটাই রবি শস্যের উপর নির্ভরশীল।সরেজমিনে দেখা গেল এই এলাকার নতুন চিত্র।আগাম জাতের বেগুন চাষ করছে কৃষকরা।সাথে অন্যান্য আগাম ফসল।বেগুন গাছের সাথে জড়িয়ে আছে তাদের স্বপ্ন।এখন স্বপ্ন ঘরে তোলার অপেক্ষা। দেখা গেলো গাছে গাছে ফুটেছে বেগুনের ফুল।আগামী ১৫/২০ দিনের মধ্যে বিক্রির উপযোগী হবে। কয়েকজন কৃষকের সাথে কথা বললে তারা জানান আবহাওয়া ভালো থাকলে এবং রোগ না হলে আর্থিকভালে লাভবান হবেন তারা।আগাম সবজি হওয়ায় দাম পাওয়া যায় ভালো। একজন কৃষক বলেন, ফলন আশানুরুপ হলে এবছর প্রতি বিঘা জমিতে প্রায় এক লক্ষ টাকার বেগুন বিক্রি হবে।খরচ বাদ দিলে ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকা ঘরে আসবে। এছাড়াও বেগুন ক্ষেতেই মুলা শাক,পাট শাক,লাল শাক ইত্যাদি চাষ করে বিঘা প্রতি ৫থেকে ৭ হাজার টাকা পাচ্ছেন তারা। কৃষকরা লাভবান হওয়ায় গত বছরের তুলনায় এ বছর বেড়েছে আবাদী জমি।সচ্ছলতা ফিরেছে অনেক পরিবারে।



এ সংবাদটি 132 বার পড়া হয়েছে.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here